শিরোনামঃ
তালায় যুবলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর ৭৪তম জন্মদিন পালন শেখ ইমাম উদ্দীন সংসদের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা করোনাকে উপেক্ষা করে ১০ লক্ষ পথশিশু যখন রাস্তায় ইউ পি নির্বাচন : জনপ্রিয়তায় এগিয়ে এস.এম লিয়াকত হোসেন তালা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের মায়ের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন তালায় ভাইস চেয়ারম্যান সরদার মশিয়ারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে সমাবেশ তালার কলাগাছির জনপদের মানুষ রয়েছে চরম অবহেলা আর বঞ্চনার মধ্যে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষগণ ষড়যন্ত্রমুলকভাবে সরদার মশিয়ার রহমানকে আসামী করা হয়েছে তালায় জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একজনকে কুপিয়ে জখম তালায় টিআরএম বাঁধ সংস্কারের দাবীতে মানববন্ধন

তালার কলাগাছির জনপদের মানুষ রয়েছে চরম অবহেলা আর বঞ্চনার মধ্যে

নিজস্ব প্রতিনিধি:

  • প্রকাশিত: বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫৬
  • ৮১
তালার কলাগাছির

সুন্দরবন উপকুলীয় সাতক্ষীরার তালা উপজেলার নিভৃত পল্লী কলাগাছি। মাইকেল মধুসূদন দত্তের স্মৃতি বিজড়িত কপোতাক্ষের কোল ঘেষে বয়ে চলা গাছার বুক চিরে রয়েগেছে দলুয়া শালিখা প্রায় আট কিলোমিটার রাস্তা। যার দুই পাশে সেই সম্মরনাতীত থেকে বসবাস করে আসছে প্রায় ৭ থেকে ৮ হাজার সনাতন ধর্মালম্বী পরিবার।
দূর্গম পল্লীর অবহেলীত গ্রামটির সুদীর্ঘ ইতিহাস আর ঐতিহ্য থাকলেও স্বাধীনতার আগে থেকেই জনপদের মানুষ রয়েছে চরম অবহেলা আর বঞ্চনার মধ্যে।
একাত্তরে ডামাডোলের মধ্যেই সেখানে প্রতিষ্ঠিত হয় কলাগাছি সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয় পুজা অর্চানার জন্য আগেই ছিল একটি সর্বজনিন দূর্গা ও কালী মন্দির। বিস্তীর্ণ অঞ্চলের বসবাস কারী হাজার হাজার মানুষের যাতায়াতের একমাত্র দুলয়া শালিখা রাস্তার মাত্র দুই কিঃমিঃ এলাকা যেন কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। ৮ কিলোমিটার রাস্তার দু’পাশে প্রায় ৬ কিলোমিটার পিচ ডালাই হলেও বাদ রয়ে গেছে মাঝের ২ কিঃ মিঃ সড়ক। চলতি বর্ষা মৌসুমে অতিরিক্ত বর্ষার পানি ও প্রাকৃতিক একাধিক দূভোর্গে ভেঙ্গে গেছে পার্শ্ববর্তী কপোতাক্ষের টি,আরএমএর একমাত্র ভেড়ীবাঁধটি। আর এতেই সর্বশান্ত কলাগাছির বিস্তীর্ণ অঞ্চল। দুই কিলোমিটার কাঁচা রাস্তার উপর দিয়ে পানি ঢুকে ইতিমধ্যে তুলিয়ে যায় গোটা এলাকা। পরে ভাঁটার পানি নেমে গেলেও স্কুল মন্দির ও রাস্তার তৈরি হয়েছে কাঁদার স্তর এলাকাবাসী স্বাভাবিক জীবন যাত্রারও পড়েছে বিরুপ প্রভাব। এলাকাবাসীর প্রানের দাবী রাস্তাটি নির্মান পূর্বক নিন্ম এলাকার আলাদা আলাদা বরাদ্ধ দিয়ে উঁচুর করা হোক। করোনা পরবর্তী স্কুলসহ উপাসনালয়ে ফিরে পাক আগের মত প্রাণ। এজন্য তারা স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

ভাল লাগলে শেয়ার করুন

সংশ্লিষ্ঠ আরও খবর